Home » বিশ্ব » ‘দুজন পুরুষ ধর্ষণ করলে গণধর্ষণ নয়’

‘দুজন পুরুষ ধর্ষণ করলে গণধর্ষণ নয়’

Share Button

ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কে জে জর্জ

ধর্ষণ, নারীদের পোশাক ইত্যাদি নিয়ে সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন আপত্তিজনক কথা বলেছেন ভারতের অনেক রাজনৈতিক নেতাই। এবার গণধর্ষণের নতুন সংজ্ঞা দিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করলেন ভারতের কর্ণাটক রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কে জে জর্জ। তাঁর বাণী, ‘দুজন পুরুষ মিলে মহিলাদের ধর্ষণ করলে সেটা গণধর্ষণই নয়। অন্তত চার-পাঁচজন লোক থাকলে, তবে তাকে গণধর্ষণ বলা যাবে।’

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, সম্প্রতি কর্ণাটকে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের (কলসেন্টার) ২২ বছরের এক কর্মী অফিস সেরে রাতে বাড়ি ফেরার পথে চলন্ত গাড়িতে গণধর্ষণের শিকার হন। গাড়িতে লিফট দেওয়ার নাম করে তাঁকে নির্জন স্থানে এনে গাড়িচালক ও তাঁর সহকারী ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ।

বিষয়টি নিয়ে প্রশ্নের মুখে কর্ণাটকের বিধানসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কী করে এটা গণধর্ষণ হয়? একটা দল দুজনে তৈরি হয় না। চার-পাঁচজন মিলে ধর্ষণ করলেই সেটা গণধর্ষণ!’

বেফাঁস এই মন্তব্যের পর বিধানসভায় শোরগোল হতেই নিজের সাফাই গেয়ে জর্জ বলেন, ‘আমি এ কথা বোঝাতে চাইনি। একজনই করুক বা দল বেঁধে করুক, ধর্ষণ ধর্ষণই। একদল লোক মিলে কোনো মহিলা বা মেয়েকে ধর্ষণ করছে, গণধর্ষণ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা কিন্তু এমনই। সাধারণ মানুষ তা-ই ভাবে, এটাই বলেছি আমি। আর এ ক্ষেত্রে তো ধর্ষণ করেছে দুজন। আমায় মিডিয়া যখন প্রশ্ন করে, তার আগেই ওরা গ্রেপ্তারও হয়েছে। আমি মনে করি, এটা জঘন্য অপরাধ এবং আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি।’

অবশ্য তাঁর এই মন্তব্যের জেরে এরই মধ্যে দেশব্যাপী সমালোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। ভারতের জাতীয় মহিলা কমিশনের নতুন প্রধান ললিতা কুমারমঙ্গলম বলেছেন, ‘নারীদের বিষয়ে তাঁর ভূমিকা প্রশ্নচিহ্নের মুখে। তাঁর এই বক্তব্যের ব্যাখ্যা চেয়েছি আমরা।’ দ্রুত জবাব না পাঠালে তাঁকে সমন পাঠানো হবে বলে জানিয়েছেন মহিলা কমিশনের প্রধান।

এ ছাড়া একজন মন্ত্রীর এভাবে বিচার-বিবেচনাহীন মন্তব্য করা উচিত নয় বলেও মন্তব্য করেছেন ললিতা কুমারমঙ্গলম।

আপনার মতামত জানান ...

comments