Assignment

আলিম পরীক্ষা ২০২২ দ্বাদশ শ্রেণি ৪র্থ সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট হিসাব বিজ্ঞান ১ম পত্র উত্তর

২০২২ সালের এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থী বন্ধুরা তোমাদের জন্য এইচএসসি, আলিম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট হিসাব বিজ্ঞান ১ম পত্রের বাছাইকৃত নমুনা উত্তর- (নগদান বই ও ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃত্ত গরমিলের কারণ অনুসন্ধান করে ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী) প্রস্তুত করা হয়েছে। এইচএসসি ও আলিম ৪র্থ সপ্তাহের অ্যাসাইনমেন্ট হিসাব বিজ্ঞান ১ম পত্রের নির্ধারিত কাজে সর্বোচ্চ নম্বর পাওয়ার জন্য এই উত্তরটি তোমাকে সহযোগিতা করবে।

চলমান কোভিড১৯ অতিমারির কারণে স্বাভাবিক শিক্ষা কার্যক্রম ব্যহত হওয়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মােতাবেক পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে শিক্ষার্থীদের শিখন কার্যক্রমে পুরােপুরি সম্পৃক্তকরণ ও ধারাবাহিক মূল্যায়নের আওতায় আনয়নের জন্য অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে কোভিড১৯ সংক্রমণ রােধে সরকার ঘােষিত স্বাস্থ্যবিধি যথাযথ প্রতিপালনপূর্বক প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য নির্দেশক্রমে অনুরােধ করা হলাে।

এইচএসসি পরীক্ষা ২০২২ দ্বাদশ শ্রেণি ৪র্থ সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট হিসাব বিজ্ঞান ১ম পত্র

অ্যাসাইনমেন্ট নম্বর: ৩

অ্যাসাইনমেন্টঃ নগদান বই ও ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃত্ত গরমিলের কারণ অনুসন্ধান করে ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুতকরণ:

২০২১ সালের ৩১ মে তারিখে সাগর অ্যান্ড কোং এর নগদান বই মােতাবেক ব্যাংক জমার উদ্বৃত্ত ৪৮,৬০০ টাকা। গরমিলের কারণসমূহ নিম্নরূপঃ

    • ১। চেক ইস্যু করা হয়েছে কিন্তু ব্যাংক কর্তৃক ডেবিট হয়নি ৪,৫০০ টাকা।
    • ২। আদায়ের জন্য ৮,৫০০ টাকার চেক ব্যাংকে জমা দেওয়া হয়েছে কিন্তু ব্যাংক বিবরণীতে এখনাে লেখা হয়নি।
    • ৩। অন্য একজন গ্রাহক কর্তৃক ইস্যুকৃত ১০,৫০০ টাকার একটি চেক ব্যাংক ভুলবশত অত্র হিসাবে ডেবিট করেছে।
    • ৪। ব্যাংক লভ্যাংশ বাবদ আদায় করেছে ১০,০০০ টাকা।
    • ৫। ব্যাংক সার্ভিস চার্জ বাবদ ১,৫০০ টাকা ডেবিট করেছে।
    • ৬। একজন পাওনাদারকে ১২,০০০ টাকার একটি চেক ইস্যু করে ভুলে নগদান বইতে ১,২০০ টাকা লেখা হয়েছে।
    • ৭। আদায়ের জন্য ব্যাংকে প্রেরিত প্রাপ্য বিল বাবদ ব্যাংক ৫১,০০০ টাকা আদায় করেছে যা নগদানভুক্ত হয়নি; উক্ত বিলের লিখিত মূল্য ছিল ৫০,০০০ টাকা।

ক) উল্লেখিত লেনদেন থেকে গরমিলের কারণ –

খ) উপযুক্ত তথ্যের আলােকে প্রচলিত পদ্ধতিতে একটি ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত করাে।

গ) উপযুক্ত তথ্যের আলােকে সংশােধিত জের পদ্ধতিতে একটি ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত করাে।

শিখনফল/বিষয়বস্তু:

  • ১. নগদান বই ও ব্যাংক হিসাবের উদ্বৃত্তের পার্থক্যের কারণ উদঘাটন করতে পারবে।
  • ২. ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত করতে পারবে।
  • ৩. নগদ অর্থের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে পারবে।

নির্দেশনা (সংকেত/ধাপ/পরিধি):

    • ক) ব্যাংক বিবরণী মােতাবেক ব্যাংক ডেবিট অর্থ ব্যাংক জমা হ্রাস।
    • খ) প্রচলিত ছক অনুযায়ী করতে হবে।
    • গ) খ এর ফলাফলের ভিত্তিতে করতে হবে।

আরো দেখুন- এইচএসসি ২০২১ দ্বিতীয় সপ্তাহ উচ্চতর গণিত ১ম অ্যাসাইনমেন্ট সমাধান

এইচএসসি পরীক্ষা ২০২২ দ্বাদশ শ্রেণি ৪র্থ সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট হিসাব বিজ্ঞান ১ম পত্র সমাধান

আমানতকারীর নগদান বইয়ের ব্যাংক কলামের উদ্বৃত্ত এবং ব্যাংক প্রদত্ত ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃত্তের মধ্যে প্রায়ই পার্থক্য দেখা যায়। এ পার্থক্যের কারণ বের করে নগদানই বই ও ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃত্তের মিলকর‌ণের জন্য আমানতকারী একটি নির্দিষ্ট তারিখে যে বিবরণী প্রস্তুত করে, তাকেই ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী/ব্যাংক মিলকরণ বিবরণী বলে।

ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী হিসাব প্র‌ক্রিয়ার কোন অংশ নয়। এ‌টি প্রস্তুত করাও বাধ্যতামূলক নয়। এ‌টি কোন হিসাব খাতও নয়। এ‌টি প্রস্তু‌তের নি‌র্দিষ্ট কোন তা‌রিখ নেই। ত‌বে কখ‌নো নগদান বই ও ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃ‌ত্তের গর‌মিল দেখা দি‌লে এ‌টি প্রস্তত করা হয়। সাধারণত হিসাবকাল শে‌ষে উভয় জে‌র অ‌মিল হ‌লে আর্থিক বিবরণী প্রস্তু‌তের পূ‌র্বে ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত কর‌তে হয়। কেননা, উভয়‌জের সং‌শোধন পদ্ব‌তি‌তে প্রাপ্ত ব্যাংক সমন্বয় বিবরণীর উদ্বৃত্তই আ‌র্থিক অবস্থার বিবরণী‌তে ব্যাংক জমা বা জমাতিরিক্ত হিসাবে দেখানো হয় । এটি হিসাববিজ্ঞানের পূর্ণ প্রকাশ নীতি অনুযায়ী প্রস্তুত করা হয় । এটি প্রস্তুতের মূল উদ্দেশ্য একটি নির্দিষ্ট তারিখে আমানতকারীর হিসাবে প্রকৃত ব্যাংক জমার উদ্বৃত্ত বা জমাতিরিক্ত-এর পরিমাণ নির্ণয় করা। সাধারণত আমানতকারী ব্যাংক মিলকরণ বিবরণী প্রস্তুত ক‌রে থা‌কে।

নগদান বহি এবং ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃত্তের মধ্যে গড়মিলের কারণ:

আমানতকারী তার ব্যাংক সংক্রান্ত লেনদেনগুলো নগদান বইতে ব্যাংক কলামে লিপিবদ্ধ করেন। অনুরূপভাবে ব্যাংক ওই লেনদেনগুলো মক্কেলের হিসাব বিবরণীতে লিপিবদ্ধ করেন। কেননা নির্দিষ্ট তারিখে নগদান বহি ব্যাংক কলামের উদ্বৃত্ত এবং মক্কেলের হিসাব বিবরণীতে উদ্বৃত্ত সমান হওয়ার কথা থাকলেও বাস্তবে তা নাও হতে পারে। যে সমস্ত কারণে দুইটি হিসাবে গরমিল দেখা যায় তা নিম্নে ব্যাখ্যা করা হলো:

১. জমাদান চেক:

আমানতকারী চেকের টাকা আদায়ের জন্য ব্যাংকে প্রেরণ করলে তিনি তার নগদান বহি ব্যাংক কলামের ডেবিট পাশে লিপিবদ্ধ করে রাখেন। ফলে নগদান বহিতে ব্যাঙ্ক ব্যালেন্স বেড়ে যায়। কিন্তু ব্যাংক উক্ত চেকের টাকা আদায় না হওয়া পর্যন্ত মক্কেলের হিসাব বিবরণীতে লিপিবদ্ধ করেন না। এজন্য দুটি হিসেবের মধ্যে পার্থক্য দেখা যায়।

২. ইস্যুকৃত চেক:

আমানতকারী কোন কারণে পাওনাদারকে চেক ইস্যু করলে তিনি তার নগদান বহির ব্যাংক কলামের ক্রেডিট পাশে লিপিবদ্ধ করেন। ফলে নগদান বহির ব্যাংক উদ্বৃত্ত কমে যায়। পাওনাদার উক্ত চেকটি ব্যাংকে উপস্থাপন না করা পর্যন্ত ব্যাংক তার মক্কেলের হিসাব বিবরণীতে লিপিবদ্ধ করতে পারেন না। কাজেই হিসেবের মধ্যে গরমিল দেখা দিবে।

৩. ব্যাংক কর্তৃক সরাসরি আদায় :

আমানতকারীর পক্ষে লভ্যাংশ বিনিয়োগের সুদ প্রাপ্য হিসাবের টাকা সরাসরি আদায় করে আমানতকারীর হিসাবে ক্রেডিট পাশে লেখেন। কিন্তু আমানতকারী এই ঘটনা না জানা পর্যন্ত তার নগদান বহি ব্যাংক কলামে ডেবিট করতে পারেন না।

৪. ব্যাংক কর্তৃক সরাসরি পরিশোধ :

ব্যাংক আমানতকারীর পক্ষ হয়ে প্রদেয় হিসাব এর টাকা গ্যাস বিল, পানির বিল, বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করে। মক্কেল হিসাব ডেবিট করে দেয়। কিন্তু আমানতকারী এই ঘটনা না জানা পর্যন্ত তার নগদান বহি ব্যাংক কলাম
ক্রেডিট করতে পারেন না।

. ব্যাংক জমাদান চেক ও প্রাপ্য নোটের অমর্যাদা :

প্রাপ্য নোট ও চেকের টাকা আদায়ের জন্য আমানতকারী তার ব্যাংকে জমা দিলে তার নগদান বহির ব্যাংক কলামে ডেবিট করে থাকেন। কিন্তু উক্ত চেক বা নোট আদায় না হলে ব্যাংক আমানতকারীর হিসাবে লিপিবদ্ধ করেন না।

৬. ব্যাংক চার্জ :

ব্যাংক আমানতকারীকে সেবা প্রদান করে থাকেন। সেই সেবার বিনিময়ে ব্যাংক কিছু টাকা কর্তন করে নেয়।

এই ঘটনা আমানতকারী না জানা পর্যন্ত নগদান বহি ব্যাংক কলামে ক্রেডিট করতে পারেন না।

প্রচলিত পদ্ধতিতে একটি ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত

Screenshot-776

সংশােধিত জের পদ্ধতিতে একটি ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত

Screenshot-777

এই ছিল তোমাদের জন্য এইচএসসি, আলিম শ্রেণির ৪র্থ সপ্তাহের এ্যাসাইনমেন্ট হিসাব বিজ্ঞান ১ম পত্রের বাছাইকৃত নমুনা উত্তর- নগদান বই ও ব্যাংক বিবরণীর উদ্বৃত্ত গরমিলের কারণ অনুসন্ধান করে ব্যাংক সমন্বয় বিবরণী প্রস্তুত।

আরো দেখুন-

 

Tags

Siam Shihab

Hello, I'm Siam Shihab. I write Content about all Trending News and Information. I'm working on this Website since June 2021. You can Visit my Profile page to read all of my content. Thank You so much to know about me.
Back to top button
Close