যশোর পরীক্ষা কেন্দ্রে ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন

rape protection

পরীক্ষা দেয়ার সময় এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়ন করেছেন এক শিক্ষক।

শনিবার দুপুরে যশোর সরকারি মহিলা কলেজে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে ছাত্রীর অভিযোগের ভিত্তিতে উপাধ্যক্ষকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, শনিবার কলেজের কলা ভবনে দ্বাদশ শ্রেণীর নির্বাচনী পরীক্ষায় চলছিল। ইসলাম শিক্ষা দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষা চলাকালে ওই কক্ষে দায়িত্বে ছিলেন বাংলা বিভাগের শিক্ষক জাকির হোসেনসহ আরও দু’জন শিক্ষক। এ সময় জাকির হোসেন এক ছাত্রীর স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেন। এক পর্যায়ে মেয়েটি চিৎকার দিলে পরীক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে অধ্যক্ষের কাছে অভিযোগ করেন। তাদের অভিযোগের ভিত্তিতে কলেজ কর্তৃপক্ষ তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে।

তবে অভিযুক্ত শিক্ষক জাকির হোসেন বলেন, ‘যৌন হয়রানির অভিযোগ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। একটি কুচক্রী মহল আমার বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে।’

কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সেলিনা ইয়াসমিন বলেন, ‘মেয়েটির অভিযোগের ভিত্তিতে কলেজের উপাধ্যক্ষ কেএম আলমগীর হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে মন্তব্য করা ঠিক হবে না।